Breaking News
Home / অজানা / হোয়াটসঅ্যাপ ইউজ়ারদের ফাঁদে ফেলতে এবার সেক্সটিং ট্র্যাপ

হোয়াটসঅ্যাপ ইউজ়ারদের ফাঁদে ফেলতে এবার সেক্সটিং ট্র্যাপ

একটা গেরো কাটতে না কাটতেই আরও একটা গেরো। প্রথমে ভুয়ো খবর। আর এখন সেক্সটিং ট্র্যাপ। হোয়াটসঅ্যাপের মাধ্যমে একের পর এক ক্রাইমের ঘটনা সামনে আসছে। সম্প্রতি সামনে এসেছে সেক্সটিং ট্র্যাপ। যার মাধ্যমে ব্ল্যাকমেল করা হচ্ছে গ্রাহকদের।

দক্ষিণ আফ্রিকায় এই ফাঁদে ফাঁসানো হয়েছে অনেককে। সাইবার বিশেষজ্ঞদের মতে খুব তাড়াতাড়ি এই ফাঁদ ছড়িয়ে পড়তে চলেছে ভারতে।সাইবার বিশেষজ্ঞরা জানান, এরজন্য সতর্ক হতে হবে পুরুষদের।

কীভাবে এই ফাঁদ পাতা হয়? মহিলাদের দিয়ে এই কাজ করা হয়। বিশেষ করে যেসব পুরুষরা সোশাল মিডিয়ায় সক্রিয় তাদের টার্গেট করা হয়। ফেসবুক, ইন্সটাগ্রাম, টুইটার থেকে সংগ্রহ করা হয় সেই ব্যবহারকারীর তথ্য। তারপর হোয়াটসঅ্যাপের মাধ্যমে যোগাযোগ করা হয়। কোনও মহিলার মাধ্যমে যোগাযোগ করা হয়। পাতানো হয় বন্ধুত্ব।

বিশেষজ্ঞরা জানান, সেই চ্যাটিং থেকে শুরু হয় নগ্ন ছবি আদান প্রদান। প্রথমে ব্যবহারকারীকে মহিলাদের নগ্ন ছবি পাঠানো হয়। যদিও সেই ছবিগুলো থাকে ভুয়ো। ব্যবহারকারী তাতে আসক্ত হয়ে পড়লে তার কাছ থেকে তার নগ্ন ছবি চাওয়া হয়।

সেই ছবি পাঠিয়ে দিলেই কেল্লাফতে। এবার শুরু হয় ব্যবহারকারীকে ব্ল্যাকমেইল করার পালা। টাকা না দিলে সেই ছবি ছড়িয়ে দেওয়ার হুমকি দেওয়া হয়। তবে ব্ল্যাকমেইলের ক্ষেত্রে টাকার পরিমাণটা হয় ৩ হাজার টাকার আশপাশে। যা সবার পক্ষেই দেওয়া সম্ভব হয়।

যদি কোনও ব্যবহারকারী ছবি না দেয়। তাহলে সোশাল মিডিয়া থেকে ছবি ফোটোশপড করে ছড়িয়ে দেওয়ার হুমকি দেওয়া হয়। আপাতত এই সেক্সটিংয়ের ফাঁদে পড়েছেন দক্ষিণ আফ্রিকার অনেক ব্যবহারকারী। তবে ক্রমে বাকি বিশ্বে তা ছড়িয়ে পড়তে পারে বলে আশঙ্কা করছেন ব্যবহারকারীরা।

এই সংক্রান্ত ঘটনা এড়াতে হোয়াটসঅ্যাপের তরফে বলা হয়েছে, অজানা নম্বর থেকে কোনও মেসেজ এলে তা ব্লক করুন। কারও সঙ্গে কথা বলা শুরু করার আগে তাকে ভালো করে জানুন।

Comments

comments

Check Also

সাপের জিভ কেন চেরা, আশ্চর্য গল্প শোনায় মহাভারত

সাপকে দেখলেই গা শিরশির। অথচ পৃথিবীতে যত প্রজাতির সাপের দেখা মেলে তার একটা বিরাট অংশই ...

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *